ফারজানা মাহবুবা’র ডাইরি : কর্দোবা – পর্ব ৫

ভ্রমণ-স্মৃতিকথা শিল্প-সংস্কৃতি সাম্প্রতিক
শেয়ার করুন

স্পেইন আসার আগে মুসলিমদের হিষ্ট্রি ঘাঁটতে গিয়ে একটা ফ্রেইজ দেখে খুব কৌতূহল হয়েছিলো আমার- “ওয়া লা গালিবা ইল্লাল্লাহ” (ولا غالب إلا الله – There is no victor but Allah).

আলহামরার দেয়ালে দেয়ালে, মুসলিমদের বিভিন্ন স্থাপনায় বিশেষ করে গ্রানাডায়, কেনো সবজায়গায় এই ফ্রেইজটা লিখা? ছবিগুলোতে যেমন দেখতে পাচ্ছেন, মুসলিমদের ঐতিহাসিক স্থাপনাগুলোতে যে ধ্বংসবিশেষ টিকে আছে সেগুলোতে এখনো এই ফ্রেইজ দেখতে পাবেন।

মুসলিমরা স্পেইন আসার প্রায় দুইশ বছর পরে যখন আস্তে আস্তে মুসলিম রয়ালসরা, আমীর-উমরাহ রা, নিজেদের মধ্যে সিভিল ওয়ার শুরু করে দিলো, কে কাকে খুন করে ব্যাকস্ট্যাব করে ক্ষমতা দখল করবে এগুলো নিয়ে কামড়াকামড়ি চলছিলো, তখন একজন নেতাকে খুঁজে বের করলো গ্রানাডার স্কলার্স আর লোকাল মুরুব্বীরা। সেই নেতার নাম মুহাম্মাদ বিন ইয়ুসুফ বিন নাসর (উনাকে মুহাম্মাদ বিন আল আহমার-ও বলা হয়, অনেকেই বলে যেখান থেকে আলহামরা নাম রাখা হয়েছে)। তিনি তখন ছোট একটা অঙ্গরাজ্যের গভর্নর।

গ্রানাডার প্রতিনিধিদল গেলো উনার কাছে। উনাকে অনুরোধ করলো, আমন্ত্রণ জানালো গ্রানাডাকে দখল করে নিয়ে গ্রানাডার মুসলিমদেরকে একত্রিত করতে। ১২৩৮ সালে তিনি গ্রানাডা দখল নিলেন। উনিই হচ্ছেন মুহাম্মাদ দ্য ফার্ষ্ট। উনি যেখানেই যেতেন বিজয়ী হতেন, তাই গ্রানাডায় বিজয়ের পর উনাকে মানুষ সম্মান করে, শ্রদ্ধা করে ডাকনামে ডাকা শুরু করলো “গালিব” যার অর্থ বিজয়ী। যখনই উনার কানে এই কথা গেলো, উনি সাথে সাথে সেই ডাকনাম রিজেক্ট করে বললেন “ولا غالب إلا الله” আল্লাহ্‌ ছাড়া আর কেউই বিজয়ী না!

উনার সময়েই আলহামরার কাজ শুরু হয়। আমরা যেমন ভাবি আলহামরা শুধু প্রাসাদ, একদম ভুল! আলহামরা একটা বি-শা-ল কমপ্লেক্স যেটার সবচে বড় ভূমিকা ছিলো মিলিটারি অবজারভেশান ডেষ্কস আর চেকপয়েন্ট হিসেবে। এই প্রাসাদ কমপ্লেক্সে ঢুকতেই এখনো একটা মিলিটারি ফোর্ট/দূর্গ দাঁড়িয়ে আছে।

যখন আমীর মুহাম্মাদ দ্য ফার্ষ্ট এর থাকার জন্য কোয়ার্টার (প্রাসাদ হয়েছে পরে, বিশেষ করে ইউসুফ দ্য ফার্ষ্ট আর মুহাম্মাদ দ্য ফিফথ্‌ আলহামরায় আমীর/সুলতানদের থাকার কোয়ার্টারগুলোকে আনইমাজিনেবল লেভেলের আর্কিট্যাকচারাল ওয়ান্ডারে পরিণত করেছিলো) বানানো হচ্ছিলো, তখন থেকেই শুধু আলহামরায়ই না, পুরো গ্রানাডায় এই ফ্রেইজটা স্ট্যান্ডার্ড হয়ে দাঁড়িয়েছিলো। ولا غالب إلا الله আল্লাহ্‌ ছাড়া আর কেউই বিজয়ী নয়!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *