গীবত পরচর্চা করে নামাজ, রোজা, দানকে নষ্ট করবেন না : মুফতি মেনক

ধর্ম ও দর্শন সাম্প্রতিক
শেয়ার করুন

অনুবাদ : মাসুম খলিলী

এক. সর্বশক্তিমান। আমাদের ভালো কাজগুলো রক্ষা করতে সাহায্য করুন। আমরা যেন তাদের মধ্যে না পড়ি যারা নামাজ, রোজা ও দান-খয়রাত করে কিন্তু অভিশাপ দেয়, শপথ করে, পরচর্চা করে এবং চোখের পলক না ফেলেই গীবত করে। আমাদের এই ধরনের আচরণ থেকে দূরে থাকতে সাহায্য করুন. আমীন।

দুই. বিবাহবিচ্ছেদের মধ্য দিয়ে যাওয়া আপনাকে খারাপ ব্যক্তি করে তোলে না। বিশিষ্ট কিছু মানুষের বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে। এর অনুমতি দিয়ে. সর্বশক্তিমান আমাদের একটি বিষাক্ত বিয়ে থেকে মুক্তির পথ দিয়েছেন। আপনার প্রাক্তনের বিষয়ে মুখ খারাপ করবেন না. ধৈর্য ধরুন, খারাপ মন্তব্য উপেক্ষা করুন এবং আপনার প্রভুর উপর ভরসা করুন। আপনি আবার খুশি হবেন।

তিন. অন্যদের কাছে অভিযোগ করা এবং আমাদের সমস্যাগুলির উপর চাপ দেওয়া- এভাবে এসব সমস্যার সমাধান হবে না। সর্বশক্তিমান আমাদের সমস্যার সর্বোত্তম সমাধান কী তা জানেন। আমাদের কেবল তাঁর উপর আস্থা রাখতে হবে, তাঁর সাহায্য চাইতে হবে আর অন্য কারো নয়। তার কাছেই চাইতে থাকুন। তিনি সাড়া দেবেন।

চার. আপনার যা প্রয়োজন তা সর্বশক্তিমানের কাছে আপনি চাইবেন। সন্দেহ করবেন না এ ব্যাপারে। তাঁর দিকে ফিরুন। কান্নাকাটি করুন। তাঁর করুণা ভিক্ষা করুন। দিকনির্দেশনা, বোঝার ক্ষমতা, পরিত্রাণ, ক্ষমা ইত্যাদির জন্য প্রার্থনা করুন। সুন্দর ধৈর্য সহকারে আপনার প্রার্থনার পুনরাবৃত্তি করার শক্তিটিকে কখনই ছোট মনে করবেন না। পুরোপুরি প্রত্যাশা নিয়ে প্রার্থনা করুন এবং আপনি পাবেন!

পূনশ্চঃ

এক. শেষটাই গুরুত্বপূর্ণ. শুরুতে যে ত্রুটি সেটি নয়। আপনার জীবনের বাকি যা আছে তা উন্নত করার চেষ্টা করুন। আন্তরিকভাবে তাওবা করুন। সর্বশক্তিমানের দিকে ফিরে যান। যা চলে গেছে তা তিনি ক্ষমা করবেন।

দুই. আপনি কি কখনও এমন কোন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছেন, যাতে ভাবেননি যে আপনি বেঁচে থাকবেন? হ্যাঁ, আপনি করেছেন আর আপনি আজও এখানে আছেন। নিজেকে সে সময় এবং এখনকার সাথে তুলনা করুন আর আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনি কতটা নিজের উন্নতি করেছেন এবং আপনার পরীক্ষার ফলে আপনি আরও শক্তিশালী হয়ে উঠছেন। মনে রাখবেন, তিনি আপনার সামর্থের চেয়ে বেশি পরীক্ষা কখনও করবেন না!

তিন. আপনি যখন নিজের প্রশংসা করেন তখন অন্যের প্রশংসা করা আরও সহজ হয়ে যায়। যখন আপনার নিজের কাছে গ্রহণযোগ্যতার অভাব হয়, তখন আপনার শত্রু দেখা যায়। আপনি যদি নিজের সম্মান সংরক্ষণ না করতে পারেন তবে কীভাবে আপনি অন্য ব্যক্তির অনন্যতা মেনে নিতে পারবেন। নিজের কাছে সত্যনিষ্ট হতে হবে। আপনার অভিযাত্রা একা আপনার। অন্যকে অনুকরণ করবেন না!

চার. আপনি যখন ঝড়ের মাঝে পড়েন এবং ভাবেন যে সর্বশক্তিমান কোথায় আছেন, মনে রাখবেন তিনি আপনাকে পরিত্যাগ করেননি। তিনি আপনাকে ভুলেননি। আপনাকে যা করতে হবে তা হ’ল প্রার্থনা করা, চাওয়া। আপনার আশার নোঙ্গর করুন দৃঢ়ভাবে । আর প্রার্থনা করতে থাকুন। এটি একক কোন প্রচেষ্টা নয়। সর্বশক্তিমান তাঁর সময়ে সাড়া দেবেন। তাঁর উপর আস্থা রাখুন!

দ্রষ্টব্যঃ

বিদ্যুৎ চমকে তাদের দৃষ্টিশক্তি কেড়ে নেয়ার উপক্রম হয়। যখনই বিদ্যুতালোক তাদের সামনে উদ্ভাসিত হয় তখনই তারা পথ চলে এবং যখন অন্ধকারে ঢেকে যায় তখন তারা থমকে দাঁড়ায়। আল্লাহ ইচ্ছে করলে তাদের শ্রবণ ও দৃষ্টিশক্তি হরণ করতে পারেন। নিশ্চয় আল্লাহ্ সবকিছুর ক্ষমতাবান। (সূরা বাকারা: ২০)

বলুন, ‘হে সার্বভৌম শক্তির মালিক আল্লাহ! আপনি যাকে ইচ্ছা ক্ষমতা প্রদান করেন এবং যার থেকে ইচ্ছা ক্ষমতা কেড়ে নেন; যাকে ইচ্ছা আপনি সম্মানিত করেন আর যাকে ইচ্ছা আপনি হীন করেন। কল্যাণ আপনারই হাতে। নিশ্চয়ই আপনি সব কিছুর উপর ক্ষমতাবান। ( সূরা আলে ইমরান: ২৬)

আল্লাহ যদি কারও ক্ষতি সাধন করেন তাহলে তিনি ছাড়া সেই ক্ষতি দূর করার আর কেহ নেই, আর যদি তিনি কারও কল্যাণ করেন, (তাহলে আল্লাহ সেটাও করতে পারেন, কেননা) তিনি সমস্ত কিছুর উপর ক্ষমতাবান। (সূরা আনআম: ১৭

* মুফতি মনক (ডক্টর ইসমাইল ইবনে মুসা মেনক) ইসলামি স্কলার ও জিম্বাবুয়ের প্রধান মুফতি

* মাসুম খলিলী সিনিয়র সাংবাদিক ও কলামিস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *